বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে অংশ নেওয়ার জন্য তার ভারতীয় প্রতিপক্ষ মোদীকে ঢাকা সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের জন্য ২০২১ সালের ২৬ শে মার্চ বাংলাদেশ সফর করবেন।


রবিবার বাংলাদেশের বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেন নিউ এজ বাংলাদেশকে এ কথা প্রকাশ করেছেন।

তাঁর মতে, প্রধানমন্ত্রী মোদী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া আমন্ত্রণটি গ্রহণ করেছেন।

তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্বোধন এবং দু'দেশের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক স্থাপনের যৌথ স্মরণে অংশ নেওয়ার জন্য মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৭ই ডিসেম্বর মোদির সাথে ভার্চুয়াল শীর্ষ সম্মেলনে তার বিবৃতিতে বলেছিলেন, ‘আমাদের যৌথ স্মৃতি বিজয়ের মুকুট গৌরবটি ২২ শে মার্চ, ২০২১ উদযাপনের জন্য ঢাকায় আপনার উপস্থিতি হবে।


প্রধানমন্ত্রী মোদী জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ১৭ই মার্চ ঢাকা সফরের কথা ছিল। তবে কভিড -১৯ প্রাদুর্ভাবের মধ্যে এই সফর স্থগিত করা হয়েছে।

এটি দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে পঞ্চম দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে।শেষ অবধি, তারা ১৭ই ডিসেম্বর ভার্চুয়াল দ্বিপাক্ষিক শীর্ষ সম্মেলন করেছিল যেখানে তারা একাধিক সমঝোতা স্মারকের (এমওইউ) স্বাক্ষর করে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে এগিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।


তার নেবারহুড প্রথম নীতিমালার আওতায় ভারত বাংলাদেশের পক্ষে উচ্চ অগ্রাধিকার স্বীকার করে। প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন ঢাকা সফর আরো সৌহার্দ্যপূর্ণ সুযোগের দ্বার উন্মুক্ত করবে।


২০১৫ সালে তিনি প্রথমবারের মতো ঢাকা আসার কারণে এটি প্রধানমন্ত্রী মোদির দ্বিতীয় সফর হবে।