ঘূর্ণিঝড় ইয়াসায় ক্ষতিগ্রস্ত ফিজিবাসীদের অনুদান হিসেবে ১৪ জাতের ফল এবং উদ্ভিজ্জ বীজের একটি চালান পাঠিয়েছে ভারত।

বিশ্বে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের নতুন কেন্দ্র হয়ে উঠেছে ভারত। প্রতিদিনই করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড তৈরী হচ্ছে সেখানে। সাম্প্রতিক তথ্য বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, ভারতে করোনায় দৈনিক সাড়ে তিন লক্ষাধিক মানুষ আক্রান্ত এবং প্রায় তিন হাজার মানুষ মৃত্যুমুখে পতিত হচ্ছেন। চারিদিকে বিরাজ করছে থমথমে অবস্থা।



তবে এমন দূর্যোগ মুহূর্তেও বন্ধু প্রতীম রাষ্ট্রসমূহকে মানবিক সহায়তা প্রদানের ভারতীয় ধারা অব্যহত রয়েছে। যার সর্বশেষ উদাহরণ হিসেবে ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে ভারত নিজের অন্যতম মিত্র দেশ ফিজিকে প্রায় ৭ টন শস্যবীজ প্রেরণ করেছে। ২৭ এপ্রিল, ২০২১, মঙ্গলবার, কৃষিক্ষেত্রে সহযোগিতার অংশ হিসেবে ফিজিকে উক্ত সহায়তা পাঠায় ভারত।



ফিজিতে অবস্থিত ভারতীয় হাইকমিশনের এক বিবৃতিতে উক্ত সামগ্রী পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, “সম্প্রতি জানুয়ারী মাসে ঘটে যাওয়া ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় ইয়াসায় আক্রান্ত ও ক্ষতিগ্রস্ত ফিজিবসীদের জীবিকা পুনরুদ্ধারে সহায়তার অভিপ্রায়ে বন্ধুত্ব, পারস্পরিক শ্রদ্ধা এবং সংহতির বহিঃপ্রকাশ হিসেবে উক্ত চালানটি অনুদান হিসেবে পাঠানো হয়েছে।’



প্রেরিত ১৪ জাতের ফল এবং উদ্ভিজ্জ শস্যবীজ গুলো সময় মতো ডেলিভারী নিশ্চিত করতে পণ্য গুলো বিমানে পাঠানো হয়। এক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়ার সিডনী হয়ে পণ্য গুলো ফিজিতে পৌছেছে বলে জানানো হয়েছে।



প্রসঙ্গত, গত জানুয়ারী মাসেও ঘূর্ণিঝড় ইয়াসায় আক্রান্ত দুর্গতদের জরুরী ত্রাণ সহায়তা পাঠিয়েছিলো ভারত এবং গত ২০১৬ সালে ঘূর্ণিঝড় উইনস্টন এ আক্রান্ত ফিজিবাসীকে সহায়তার উদ্দেশ্যে কৃষিপণ্য ও শস্যবীজ পাঠিয়েছিলো তারা।



তাছাড়া, কৃষি ও সহযোগী খাতে উন্নয়নকল্পে গবেষণা কর্মী, বৈজ্ঞানিক বিশেষজ্ঞ, প্রযুক্তিগত দক্ষ প্রশিক্ষণার্থীদের বিনিময় সহ কৃষি উন্নয়নে প্রযুক্তির বিকশিত ব্যবহার এবং প্রশিক্ষণ বিষয়ক সেমিনার ও ওয়ার্কশপ পরিচালনার ক্ষেত্রে দু দেশের মধ্যে পাঁচ বছর মেয়াদী পারস্পরিক চুক্তিও রয়েছে।