মহামারীতে বিপর্যস্ত ভারতকে সহযোগিতা করতে এগিয়ে আসছে বিশ্ব সম্প্রদায়

সৌদী, কুয়েত এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের পর সম্প্রতি পারস্য উপসাগরীয় চতুর্থ আরব রাষ্ট্র হিসেবে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ভারতকে সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে কাতার।



গত ২৭ এপ্রিল, মঙ্গলবার, কাতারের আমীর তামিম বিন হামাদ আল থানির সঙ্গে এক টেলিফোন বৈঠক করেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এসময় মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতীয়দের সহায়তা প্রদানের জন্য কাতারকে ধন্যবাদ জানান মোদী। পরবর্তীতে এক টূইটবার্তায় প্রধানমন্ত্রী নিজেই এই ফোনালাপের কথা প্রকাশ করেন।



টুইট লিঙ্ক: https://twitter.com/narendramodi/status/1387065786083078146?s=20



বৈঠকে দু দেশের মধ্যকার আন্তঃসম্পর্ক, ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় করণীয়, দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা, উন্নয়নে ও বিকাশ কার্যক্রমে যৌথ উদ্যোগ সহ নানা বিষয়ে কথা বলেছেন দুই নেতা। এসময় ক্ষতিগ্রস্ত ভারতীয়দের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেছেন কাতারী আমীর।



এর আগে উপসাগরীয় অঞ্চলে আরেক ভারতীয় মিত্র রাষ্ট্র কুয়েত বর্তমান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সহযোগিতা অব্যহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে। গত মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল, ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে এক ফোনালাপে এ কথা বলেছে কুয়েতি পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ আহমেদ নাসের আল মোহাম্মদ আল সাবাহ।



টুইট লিঙ্ক: https://twitter.com/DrSJaishankar/status/1387013012066865154?s=20



ভারতকে সাহায্যের ক্ষেত্রে পারস্য উপসাগরীয় অন্যান্য বন্ধু দেশগুলোর মধ্যে পিছিয়ে নেই সৌদী আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতও।



ইতোমধ্যে ৮০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন ভারতে পাঠিয়ে দিয়েছে। ভারতীয় প্রতিষ্ঠান আদানী গ্রুপ এবং লিণ্ডের মাধ্যমে উক্ত সাহায্য প্রেরণ করে সৌদী। একই সঙ্গে ৫০০০ অক্সিজেন সিলিন্ডারও পাঠিয়েছে দেশটি। আরব দেশটির এমন সহায়তা ও সমর্থনের জন্য কৃতজ্ঞতা জানিয়ে টুইট করেছে রিয়াদে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাস।



টুইট লিঙ্ক: https://twitter.com/IndianEmbRiyad/status/1385993688271126528?s=20



অন্যদিকে গত ২৫ এপ্রিল, রবিবার, সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী শেখ আব্দুল্লাহ বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের সাথে টেলিফোনে বৈঠক করেছিলেন ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। সেখানে ভারতের দুর্দিনে সর্বোচ্চ সহযোগিতার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছেন আমিরাত কর্তৃপক্ষ এবং শীঘ্রই ত্রাণ পাঠানোর ঘোষোনা দিয়েছেন। তাঁদের ধন্যবাদ জানিয়ে একটি টুইটও করেন জয়শঙ্কর।



টুইট লিঙ্ক: https://twitter.com/DrSJaishankar/status/1386515365555888128?s=20



প্রসঙ্গত, বিশ্বে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের নতুন কেন্দ্র হয়ে উঠেছে ভারত। প্রতিদিনই করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড তৈরী হচ্ছে সেখানে। সাম্প্রতিক তথ্য বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, ভারতে করোনায় দৈনিক সাড়ে তিন লক্ষাধিক মানুষ আক্রান্ত এবং প্রায় তিন হাজার মানুষ মৃত্যুমুখে পতিত হচ্ছেন। চারিদিকে বিরাজ করছে থমথমে অবস্থা।