ফিলিস্তিন এবং ইসরায়েলে শান্তি প্রতিষ্ঠায় দুই রাষ্ট্র ভিত্তিক সমাধানে জোর দিয়েছেন ব্রিকস পররাষ্ট্রমন্ত্রীগণ।

ব্রিকসের ১৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভার্চুয়াল মাধ্যমে আয়োজিত বৈঠকটির সভাপতিত্ব করেন ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। বৈঠকে সমসাময়িক নানান গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে মতবিনিময় করেন তাঁরা।



এসময়, গত ২১ মে গাজাতে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানায় ব্রিকস পররাষ্ট্রমন্ত্রীগণ। পাশাপাশি যুদ্ধবিধ্বস্ত অঞ্চলে দ্রুত শান্তি ফিরিয়ে আনতে এবং পুনর্গঠনে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহবান জানান তাঁরা।



আলোচনাকালে ফিলিস্তিন এবং ইসরায়েলে শান্তি প্রতিষ্ঠায় দুই রাষ্ট্র ভিত্তিক সমাধানে জোর দিয়েছেন ব্রিকস পররাষ্ট্রমন্ত্রীগণ। তাছাড়া, ফিলিস্তিনের শরণার্থীদের জন্য জরুরী ত্রাণ এবং কর্মসংস্থানে সমন্বিত এবং শক্তিশালী একটি প্যাকেজ দ্রুত ঘোষণা করতে জাতিসংঘ মহাসচিবের নিকট আহবান জানান তাঁরা।



উক্ত বৈঠকে সিরিয়ায় চলমান নাশকতা প্রসঙ্গেও আলোচনা করেন মন্ত্রীগণ। সিরিয়ার সার্বভৌমত্ব, স্বাধীনতা, ঐক্য এবং আঞ্চলিক অখন্ডতার প্রতি নিজেদের শ্রদ্ধা এবং প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন তাঁরা।



পাশাপাশি সিরিয়া সঙ্কটের কোনো সামরিক সমাধান হতে পারেনা বলে মত দেন ব্রিকস নেতৃত্ব। রাজনৈতিক উপায়ে সিরিয়া সঙ্কট মোকাবেলা এবং আলোচনার ভিত্তিতে শান্তিপূর্ণ সমাধানের উপর জোর দেন তাঁরা।



এছাড়াও, সিরিয়ার যুদ্ধ পরবর্তী অবকাঠামোগত পুনর্গঠন এবং নিরপেক্ষ মানবিক সহায়তায় নজর দিতে বিশ্ব নেতৃত্বের প্রতি আহবান জানান তাঁরা। সিরিয়ান শরণার্থী এবং বাস্তুচ্যুত ব্যক্তিদেরকে তাঁদের পৈত্রিক ভিটায় নিরাপদে, স্বেচ্ছায় এবং মর্যাদাপূর্ণ পুনর্বাসনের দাবি জানান বক্তাগণ।



প্রসঙ্গত, ২০০৬ সালে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন এবং দক্ষিণ আফ্রিকার সমন্বয়ে ব্রিকস গঠন প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয় এবং ২০০৯ সালে সর্বপ্রথম এর শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর গত পনেরো বছরের যাত্রায় সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা, সাইবার সুরক্ষা, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সহ অর্থনৈতিক সহযোগিতার নিত্য নতুন ক্ষেত্রে একত্রে কাজ করে চলেছে ব্রিকস। উন্নয়নশীল দেশ সমূহের চাহিদা এবং উদ্বেগের বিষয়ে আলোচনা এবং দাবির ক্ষেত্রে ব্রিকস একটি কার্যকর প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়েছে।