সরাসরি বিনিয়োগে সহজলভ্যতা এবং সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা থাকায় প্রতিরক্ষা খাতে বিশ্বের শীর্ষ সংস্থাগুলো ভারতের প্রতি আকৃষ্ট হচ্ছে

উত্তরপ্রদেশ এবং তামিলনাড়ুতে অবস্থিত প্রতিরক্ষা করিডোরে সুইডিশ কোম্পানীগুলোকে বিনিয়োগের আহবান জানিয়েছেন ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। মঙ্গলবার, ০৮ জুন, ভারত-সুইডেন প্রতিরক্ষা শিল্প সহযোগিতা বিষয়ক ওয়েবিনারে মন্ত্রী বলেন, “বিনিয়োগকারীগণ কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকার কর্তৃক প্রদান করা প্রণোদনা এবং উচ্চতর দক্ষতা সম্পন্ন ভারতীয় কর্মীদের উপস্থিতি দ্বারা উপকৃত হতে পারেন।”

এসময় ভারতীয় প্রতিরক্ষা শিল্পকে একটি শক্তিশালী খাত উল্লেখ করে পারস্পরিক স্বার্থের ক্ষেত্রে সুইডিশ কোম্পানী গুলোকে সহ-বিকাশ এবং সহ-উৎপাদনের আহবান জানান রাজনাথ সিং।

ওয়েবিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন, সুইডিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী পিটার হাল্টকভিস্ট, ভারতে নিযুক্ত সুইডিশ রাষ্ট্রদূত ক্লাস মলিন, সুইডেনে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত তন্ময় লাল, দুই দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এবং সুইডিশ প্রতিরক্ষা শিল্পের প্রতিনিধিগণ।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বলেন, ভারতের প্রতিরক্ষা শিল্প খাতে ৪১ টি তোপ কারখানা, ৯ টি প্রতিরক্ষা পাবলিক সেক্টর অবকাঠামো এবং প্রায় ১২ হাজারের বেশি বড়, মাঝারী এবং ক্ষুদ্র উদ্যোগের সমন্বয়ে গঠিত প্রাইভেট সেক্টর ইন্ডাস্ট্রি রয়েছে।

এসময়, রাজনাথ সিং স্মরণ করিয়ে দেন, গত বছর ভারতে চালু করা প্রতিরক্ষা অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া সংশ্লিষ্ট খাতে গার্হস্থ্য উৎপাদন প্রক্রিয়াকে উৎসাহিত করে এবং প্রতিরক্ষা উৎপাদন কেন্দ্র হিসেবে ভারতের উত্থানের জন্য শক্তিশালী ভিত রচনা করেছে।

তাছাড়া, ব্যবসায় সহজলভ্যতা এবং সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা থাকায় প্রতিরক্ষা খাতে বিশ্বের শীর্ষ সংস্থাগুলো ভারতে বিনিয়োগে আকৃষ্ট হচ্ছে বলেও জানান মন্ত্রী।

প্রতিরক্ষা অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া-২০২০ এবং ফরেন ডিরেক্টর ইনভেস্টমেন্ট নীতিমালা প্রবর্তনের ফলে বিদেশী কোম্পানী গুলোকে ভারতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যে সুবিধা দেয়া হয়েছে, তা ব্যবহার করে সুইডিশ কোম্পানীগুলোকে এগিয়ে আসার আহবান জানান মন্ত্রী।

পাশাপাশি জাহাজ নির্মাণ শিল্পেও সুইডিশ কোম্পানী গুলোর সঙ্গে জড়িত হওয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন রাজনাথ। তিনি বলেন, “ভারতে একটি শক্তিশালী জাহাজ নির্মাণ শিল্প রয়েছে। এখানে নির্মিত জাহাজগুলো বিশ্বমানের এবং অত্যন্ত ব্যয়বহুল। ভারত এবং সুইডেন পারস্পরিক স্বার্থে জাহাজ নির্মাণ শিল্পে একত্রে অংশ নিতে পারে।”

উক্ত ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানটিতে ভারতের ‘সোসাইটি অব ইন্ডিয়ান ডিফেন্স ম্যানুফ্র্যাকচারার্স (এসআইডিএম)’ এবং সুইডেনের ‘সুইডিশ সিকিউরিটি এন্ড ডিফেন্স ইন্ডাস্ট্রি এসোসিয়েশন (এসওএফএফ)’ এর মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।