এমন এক সময়ে জয়শঙ্কর কুয়েত সফরে যাচ্ছেন, যখন দেশ দুটো নিজেদের মধ্যকার কূটনৈতিক সম্পর্কের ৬০তম বর্ষ উদযাপন করছে।

তিনদিনের কুয়েত সফরে যাচ্ছেন ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। ৮ জুন দেশটির উদ্দেশ্যে রওনা করবেন তিনি।



মূলত দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক বাড়ানোর উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পক্ষে কুয়েতের আমীর শেখ নাওয়াফ আল-আহমাদ আল-সাবাহের জন্য একটি বিশেষ বার্তা নিয়ে যাচ্ছেন জয়শঙ্কর। সফরকালে উচ্চ পর্যায়ের কিছু বৈঠক সহ কুয়েতে বসবাসরত ভারতীয় প্রবাসীদের সঙ্গেও দেখা করবেন তিনি।



উল্লেখ্য, গত সেপ্টেম্বরে কুয়েতের তৎকালীন শাসক শেখ সাবাহ আল-আহমদ আল-সাবাহ মৃত্যুবরণ করেন। এরপর পারস্য উপসাগরীয় দেশটিতে শেখ নাওয়াফ ক্ষমতা গ্রহণের পর এটিই প্রথম কোনো ভারতীয় শীর্ষ নেতৃত্বের কুয়েত সফর। এমন এক সময়ে জয়শঙ্কর কুয়েত সফরে যাচ্ছেন, যখন দেশ দুটো নিজেদের মধ্যকার কূটনৈতিক সম্পর্কের ৬০তম বর্ষ উদযাপন করছে।



বৈশ্বিক ভূ-রাজনীতিতে সাম্প্রতিক ঘটনাবলী বিবেচনায় জয়শঙ্করের কুয়েত সফরের বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ভারতকে মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তরল অক্সিজেন সরবরাহ সহ নানাভাবে সহযোগিতা করছে কুয়েত প্রশাসন।



তাছাড়া, গত মার্চ মাসেও দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিকাশে কুয়েতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আহমেদ নাসের আল মোহাম্মদ আল সাবাহ ভারত সফর করেছিলেন। আবার, গত ফেব্রুয়ারী মাসে ভারত কুয়েতকে কোভিশিল্ড টিকার প্রায় ২ লক্ষ ভ্যাকসিন সরবরাহ করেছিলো। তাই বলা যায়, জয়শঙ্করের কুয়েত সফরের বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে।



প্রসঙ্গত, ভারত কুয়েতের বৃহত্তম ব্যবসায়িক অংশীদারদের মধ্যে অন্যতম। গত ২০১৯-২০ অর্থবছরেও দেশ দুটো নিজেদের মধ্যে প্রায় ১১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বাণিজ্য করে। তাছাড়া ভারতে তেল রপ্তানীকারকদের মধ্যে কুয়েত অন্যতম প্রধান রাষ্ট্র। পাশাপাশি, কুয়েতে প্রায় ৯ লক্ষাধিক ভারতীয় প্রবাসী বসবাস করে থাকেন।