আইএমএফ জানিয়েছে, আগামী মাসে ভারতের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পুর্বাভাস পুনর্বিবেচনা করবে তাঁরা।

করোনা নির্মূলে সকলের জন্য ভ্যাকসিন সহজতর করতে এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সামগ্রীর উৎপাদন বৃদ্ধিতে ভারত সরকার গৃহীত পদক্ষেপ সমূহকে স্বাগত জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। গত ১০ জুন, বৃহস্পতিবার, এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন আইএমএফ মুখপাত্র গেরি রাইস।

তিনি বলেন, “সকলের জন্য ভ্যাকসিন গ্রহণ সহজতর করতে এবং মানবিক বিবেচনায় এর সার্বিক ব্যয় কমাতে ভারত সরকারের প্রচেষ্টাকে স্বাগত জানায় আইএমএফ।”

তাছাড়া, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ভারত সৃষ্ট সামাজিক পরিবেশ এবং লকডাউনের ফলে অর্থনৈতিকভাবে ধাক্কা খেয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। রাইস আরও বলেন, “এটা স্বীকৃত যে, অর্থনৈতিকভাবে ভারত অবশ্যই বিশ্বব্যাপী এবং আঞ্চলিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার। বৈশ্বিক জিডিপির একটা বড় অংশ ভারত থেকে আসে। বিশ্ব বাণিজ্যের ধারা এবং বৈশ্বিক সরবরাহ চেইন বজায় রাখতে ভারতের শক্তিশালী ভূমিকা রয়েছে।”

প্রসঙ্গত, গত সোমবার, রাজ্য সরকারের হাত থেকে টিকা দান কর্মসূচি কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে ফেরত নিয়ে নেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেন। তাছাড়া, আসন্ন ২১ জুন থেকে ১৮ বছর বয়সী বা তদুর্ধ্ব সকলে বিনামূল্যে টিকা পাবেন বলে ঘোষণা দেন তিনি।

তাঁর এই ঘোষণা অনুসারে, এখন থেকে মোট টিকার ৭৫% কেন্দ্রীয় সরকার সরাসরি রাজ্যগুলোতে বিনামূল্যে বিতরণ করবে, অন্যদিকে বেসরকারী হাসপাতাল গুলোতে বাকি ২৫% টিকা পাওয়া যাবে।

পাশাপাশি, দেশে ব্যবহৃত সকল ভ্যাকসিন ডোজের দাম এবং বেসরকারী হাসপাতালের সার্ভিস চার্জ কমিয়ে দিয়েছেন মোদী। একই সঙ্গে, মহামারী মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় জীবনরক্ষাকারী ওষুধ উৎপাদন বৃদ্ধির ঘোষণাও দেন তিনি।