ভারতীয় নৌবাহিনী বিশ্বের শীর্ষ তিনটি নৌবাহিনীর একটিতে পরিণত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী

কর্ণাটকের কারোয়ার নৌ ঘাঁটি এশিয়ার বৃহত্তম এবং সবচেয়ে দক্ষ নৌ ঘাঁটি হতে চলেছে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। কারোয়ার ঘাঁটি সশস্ত্র বাহিনীর আভ্যন্তরীণ অভিযানের প্রস্তুতিকে আরও শাণিত করবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন মন্ত্রী।

২৪ জুন, বৃহস্পতিবার, ‘প্রকল্প সমুদ্রদ্বীপ’ এর অধীনে চলমান অবকাঠামোগত উন্নয়ন সমূহের অগ্রগতি পর্যালোচনা করতে সেসব স্থাপনা সফর করেন রাজনাথ সিং। এরপর একটি টুইট বার্তায় মন্ত্রী বলেন, “আমি নিশ্চিত, এই প্রকল্পটি শেষ হবার পর কারোয়ার নৌ ঘাঁটি এশিয়ার বৃহত্তম এবং সবচেয়ে দক্ষ নৌ ঘাঁটিতে পরিণত হবে।”

তাছাড়া, এই ঘাঁটি বাণিজ্য, অর্থনীতি এবং মানবিক সহায়তা কার্যক্রমের ক্ষেত্রেও সর্বোতভাবে সেবা প্রদান করতে সক্ষম হবে বলে অভিমত দেন মন্ত্রী। তাছাড়া, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে সমুদ্রে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গেও গুরুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলবে বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মন্ত্রী।

পরবর্তীতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, চলমান প্রকল্পগুলোর দ্বিতীয় ধাপের কার্যক্রম পর্যালোচনা করেছেন রাজনাথ সিং। এসময় তাঁর সঙ্গে নৌবাহিনীর প্রধান এডমিরাল করমবীর সিংও উপস্থিত ছিলেন।

জানা গিয়েছে, ঘাঁটিটিতে ডকিং, আন-ডকিং জাহাজ এবং সাবমেরিনের জন্য দেশের প্রথম সি-লিফট সুবিধা রয়েছে। তাছাড়া, কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ার পর সেখানে নেভাল এয়ার স্টেশনও স্থাপন করা হবে।

নিজ বক্তব্যে, ভারতীয় নৌবাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশ্যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী স্বনির্ভরতা বৃদ্ধির সাম্প্রতিক প্রয়াসের কথা উল্লেখ করেন। বিগত পাঁচ অর্থ বছর সময়কালে বাজেট বরাদ্দ কীভাবে বাড়ানো হয়েছে সে বিষয়েও ধারণা দেন তিনি।

প্রতিরক্ষা সহ বাণিজ্যিক এবং কূটনীতিক নানা পর্যায়ে অনবদ্য অবদান রাখায় এসময় নৌবাহিনীর ব্যাপক প্রশংসা করেন মন্ত্রী। ভারতীয় নৌবাহিনী বিশ্বের শীর্ষ তিনটি নৌবাহিনীর একটিতে পরিণত হবে বলে এসময় আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী।