সীমান্তে শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখতেই হটলাইন স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

সীমান্তে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে আরও উদ্যোগী হলো ভারত ও চীন। নিজেদের সীমান্ত ‘লাইন অব একচুয়াল কন্ট্রোলে’ (এলওসি) সামরিক হটলাইন স্থাপন করলো দেশ দুটো। মূলত, সীমান্তে শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখতেই হটলাইন স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।



সীমান্ত সমস্যার সমাধানে সমঝোতায় আসতে গত শনিবার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার (এলওসি) কাছে চীনের মল্ডোতে সামরিক পর্যায়ের বৈঠকে বসেছিলেন ভারত ও চীনের সেনা কর্মকর্তারা। দু দেশের মধ্যে সেনাপর্যায়ে বৈঠকের পর- উত্তর সিকিমের কোংরা লায় সীমান্ত এলাকায় ভারতীয় সেনা ঘাঁটির সঙ্গে তিব্বতের খাম্বা জংয়ে চীনা বাহিনীর ঘাঁটির যোগাযোগে থাকবে বলে সিদ্ধান্ত হয়।



পরবর্তীতে উক্ত বৈঠক সম্পর্কে ভারতীয় সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানায়, কমান্ডার স্তরে যোগাযোগ বাড়াতে আরও উদ্যোগী হয়েছেন দুই দেশের সেনা কর্তৃপক্ষ। সীমান্তে শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখতেই হটলাইন স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে দুই দেশের সেনাকর্তাদের পক্ষ থেকে।



উল্লেখ্য, গত বছর পূর্ব লাদাখে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়েছিল ভারত ও চীন। তারপর দীর্ঘ আলোচনা শেষে স্থিতাবস্থা ফেরাতে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল দুই দেশ। কিন্তু হটস্প্রিং ও গোগরা ঘাঁটি এলাকায় এখনও বিপুল সেনা মোতায়েন করে রেখেছে দুই দেশ। সেই বিষয়টি নিয়েই আলোচনা চালাতে গিয়ে হটলাইন স্থাপনে রাজি হয় দুই দেশ।