এখনও অবধি ভারতে তৈরী করা সবচেয়ে বড় এবং জটিল নকশার রণতরী বিক্রান্ত।

সমুদ্রে পরীক্ষামূলক যাত্রা করলো ভারতের তৈরি প্রথম বিমানবাহী রণতরী বিক্রান্ত। ০৪ আগস্ট, বুধবার, বহুল প্রতীক্ষিত এই রণতরীটি যাত্রা আরম্ভ করে। পরবর্তীতে ভারতীয় নৌবাহিনীর এক টুইট বার্তায় উক্ত তথ্যটি জানানো হয়।



নৌবাহিনী সূত্রে জানা গিয়েছে, এখনও অবধি ভারতে তৈরী করা সবচেয়ে বড় এবং জটিল নকশার রণতরী বিক্রান্ত। আইএনএস বিক্রান্তের নির্মাণ ব্যয় ২৪ হাজার কোটি টাকা। এর দৈর্ঘ্য ২৮২ মিটার, প্রস্থ ৬২ মিটার। এই রণতরীতে একসঙ্গে ২৫-৪০ টি এয়ারক্রাফট থাকতে পারবে। এতে রয়েছে দুটি ৩২ সেল যুক্ত ভার্টিকাল লঞ্চ সিস্টেম, যেখান থেকে ৬২টি মিসাইল ছোড়া সম্ভব।

টুইট লিঙ্ক: https://twitter.com/indiannavy/status/1422808740978364419?s=19



তবে, আইএনএস বিক্রান্ত নামটি ভারতের নৌবাহিনীতে নতুন নয়। এর আগে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ জড়ালে আইএনএস বিক্রান্ত নামক দুর্ধর্ষ এক রণতরী বিস্তৃত সমুদ্র জুড়ে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিপুল পরাক্রম দেখিয়েছিল। ৩৬ বছর সমুদ্রে বিচরণের পর ওই রণতরীটি পুরনো হয়ে যাওয়ায় ১৯৯৭ সালে বাতিল করে দেওয়া হয়। যুদ্ধে পরাক্রমশীল ওই রণতরীর সম্মানে সেদেশের তৈরি প্রথম বিমানবাহী রণতরীটির নামও রাখা হচ্ছে আইএনএস বিক্রান্ত।



বর্তমানে ভারতের নৌবাহিনীতে যুদ্ধবিমানবাহী একমাত্র রণতরী আইএনএস বিক্রমাদিত্য। এটি রাশিয়ার তৈরি। ২০১৪ সালে ভারতের নৌবহরে যুক্ত হয় এ রণতরীটি।



এর আগে, কেরেলার কোচিতে দক্ষিণ নৌকমান্ডের একটি অনুষ্ঠানে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ২০২২ সালে আইএনএস বিক্রান্তের নৌবাহিনীতে অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছিলেন। ভারতের পূর্ব সেনা কমান্ডে এ রণতরীটি যুক্ত হবে বলেও তখন জানিয়েছিলেন রাজনাথ সিং।



উল্লেখ্য, ‘আইএনএস বিক্রান্ত’ ইন্ডিজেনাস এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার ১ বা আইএসি-১ নামেও পরিচিত। কেরলের কোচি শিপইয়ার্ড লিমিটেডে নির্মিত হয়েছে এই যুদ্ধবিমানবাহী রণতরী।