মহড়াটি উভয় নৌবাহিনীর মধ্যকার আন্তঃযোগাযোগ বৃদ্ধি এবং সমুদ্রে নিরাপত্তা বজায় রাখতে সাহায্য করবে

ব্রুনাই এর রয়েল নৌবাহিনীর সঙ্গে যৌথ মহড়ায় অংশ নিতে দেশটির মুয়ারা বন্দরে পৌছেছে ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজ শিবালিক এবং কাদমাত। ০৯ আগস্ট, সোমবার, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে পৌছায় ভারতীয় জাহাজগুলো।



জানা গিয়েছে, মুয়ারা বন্দরে অবস্থানকালে জাহাজ দুটোর ক্রু মেম্বারগণ ব্রুনাই এর রয়েল নৌবাহিনীর বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাগণের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক ও আলোচনায় মিলিত হবেন।



প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, মহড়াটি উভয় নৌবাহিনীর মধ্যকার আন্তঃযোগাযোগ বৃদ্ধি এবং সমুদ্রে নিরাপত্তা বজায় রাখতে ও সাধারণ বোঝাপড়া বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে।



এছাড়াও, মহড়াটির ফলে দু দেশের মধ্যকার কূটনৈতিক আন্তঃসম্পর্ক এবং প্রতিরক্ষা সম্পর্কও নতুন মাত্রা লাভ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে বিবৃতিতে। মহড়াটি শেষ হবে আগামী বৃহস্পতিবার।



উল্লেখ্য, ব্রুনাই এর সঙ্গে ভারতের মহড়াটি চলাকালে করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বিশেষ সতর্কতা স্বরূপ উভয় পক্ষই যেকোনো প্রকারের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলবেন।



প্রসঙ্গত, ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে ভারতের সাম্প্রতিক ইস্ট-অ্যাক্ট নীতি অনুসারে বর্তমানে মিত্র ও সমমনা দেশ গুলোর সঙ্গে সম্পর্ক আরও গভীর করতে একাধারে যৌথ মহড়ায় অংশ নিচ্ছে ভারত।



আইএনএস শিবালিক এবং কাদমাত ভারতের দেশীয়ভাবে ডিজাইন করা এবং নির্মিত মাল্টি রোল গাইডেড মিসাইল স্টিলথ ফ্রিগেট এবং অ্যান্টি-সাবমেরিন করভেট। উভয় জাহাজই ভারতের ইস্টার্ন নেভাল কমান্ডের অধীনে বিশাখাপত্তনমে অবস্থিত ভারতীয় নৌবাহিনীর পূর্ব নৌবহরের অংশ। জাহাজ দুটো বহুমুখী অস্ত্র এবং সেন্সর দিয়ে সজ্জিত, হেলিকপ্টার বহন করতে পারে।



রয়্যাল ব্রুনাই নৌবাহিনীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় এই মহড়াটি শেষ হলে উভয় জাহাজ মালাবার -২১ মহড়ায় অংশ নিতে গুয়াম রওনা করবে। সেখানে তাঁরা কোয়াডভূক্ত জাপানি মেরিটাইম সেলফ ডিফেন্স ফোর্স (জেএমএসডিএফ), রয়্যাল অস্ট্রেলিয়ান নেভি (আরএএন) এবং ইউনাইটেড স্টেটস নেভি (ইউএসএন) এর সঙ্গে মিলিত হবে।