খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চায়নের লক্ষ্যে কৃষি জীববৈচিত্র্যকে শক্তিশালী করতে ব্রিকসের ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করে ব্রিকস ওয়ার্কিং গ্রুপ।

কৃষিক্ষেত্রে জলবায়ু পরিবর্তন সহ সার্বিক সমস্যা মোকাবেলা করে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে উন্নত সমাধানের প্রয়োজন বলে অভিমত দিয়েছে ভারত। গত ১২ এবং ১৩ আগস্ট ভার্চুয়াল মাধ্যমে অনুষ্ঠিত ব্রিকস ওয়ার্কিং গ্রুপের কৃষি বিষয়ক বৈঠকে এমন মন্তব্য করে দেশটি। পাশাপাশি কৃষিক্ষেত্রে উৎপাদন বৃদ্ধিকল্পে ব্রিকসভূক্ত দেশগুলোকে একে অপরের সঙ্গে উন্নত প্রযুক্তি এবং অভিজ্ঞতা ভাগ করে নেয়ার আহবানও জানায় তাঁরা।

উক্ত বৈঠকে জাতিসংঘ প্রণীত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের বিষয়েও আলোচনা করা হয়। এছাড়াও, ২০৩০ সাল নাগাদ খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চায়নের লক্ষ্যে কৃষি জীববৈচিত্র্যকে শক্তিশালী করতে ব্রিকসের ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করে ব্রিকস ওয়ার্কিং গ্রুপ।

আলোচনাকালে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের সদস্য বলেন, “কৃষি গবেষণা, সম্প্রসারণ, প্রযুক্তি হস্তান্তর, প্রশিক্ষণ এবং সক্ষমতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সহযোগিতার প্রশ্নে একটি নির্ভরযোগ্য ব্রিকস কৃষি গবেষণা প্ল্যাটফর্ম তৈরী করেছে ভারত।”

ব্রিকসের এই কৃষি গবেষণা প্ল্যাটফর্মকে কার্যকর করতে এবং উৎপাদনকারী ও প্রসেসরের চাহিদা পূরণের জন্যে কৃষি প্রযুক্তির প্রয়োগ ও ব্যবহার এর মাধ্যমে গবেষণায় সহযোগিতা করার আহবান জানান তাঁরা।

বৈঠকটিতে ২০২১-২৪ সাল সময়কালের জন্য ব্রিকস ভূক্ত দেশগুলোর মধ্যে কৃষি সহযোগিতা বিষয়ক কর্ম পরিকল্পনাও প্রণয়ন করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০০৬ সালে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন এবং দক্ষিণ আফ্রিকার সমন্বয়ে ব্রিকস গঠন প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয় এবং ২০০৯ সালে সর্বপ্রথম এর শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর গত পনেরো বছরের যাত্রায় সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা, সাইবার সুরক্ষা, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সহ অর্থনৈতিক সহযোগিতার নিত্য নতুন ক্ষেত্রে একত্রে কাজ করে চলেছে ব্রিকস। উন্নয়নশীল দেশ সমূহের চাহিদা এবং উদ্বেগের বিষয়ে আলোচনা এবং দাবির ক্ষেত্রে ব্রিকস একটি কার্যকর প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়েছে।