প্রতিরক্ষা খাতে উদ্ভাবন, আধুনিক নকশা এবং বিকাশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবার আহবান জানান প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

ভারতের অভ্যন্তরে একটি আত্মনির্ভরশীল প্রতিরক্ষা শিল্প ব্যবস্থা গড়ে তোলার পাশাপাশি শক্তিশালী, আধুনিক এবং সুসজ্জিত সামরিক বাহিনী তৈরীর গুরুত্ব তুলে ধরেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। বৃহস্পতিবার, ‘ইনোভেশন ফর ডিফেন্স এক্সিলেন্স-ডিফেন্স ইনোভেশন অর্গানাইজেশন’ (আইডিইএক্স-ডিআইও) কর্তৃক ভার্চুয়াল আয়োজিত ‘ডিফেন্স ইন্ডিয়া স্টার্টআপ চ্যালেঞ্জ (ডিআইএসসি) ৫.০’ উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, “ডিফেন্স ইন্ডিয়া স্টার্টআপ চ্যালেঞ্জ আমাদের যুব ও উদ্যোক্তা শ্রেণীর সামনে এক সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করে দেয়। তাঁরা ভারতের বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং গবেষণার সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে প্রতিরক্ষা উদ্ভাবন এবং সক্ষমতাকে নতুন দিক নির্দেশনা দেয়।”

আলোচনার এক পর্যায়ে আইডিইএক্স-ফৌজি’র বিষয়েও অবতারণা করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, “আইডিইএক্স-ফৌজি অনুরূপ একটি উদ্যোগ, যা আমাদের পরিষেবা কর্মীদেরকেও নিজেদের প্রতিভা প্রদর্শনের সুযোগ করে দেয়।”

এসময়, আইডিইএক্স-এর বিস্তৃত রূপরেখা সম্পর্কে নিজের অভিমত ব্যক্ত করেন মন্ত্রী। রাজনাথ সিং বলেন, “আইডিইএক্স এর বিভিন্ন উদ্যোগ দেশে মেধা ও চাহিদার মধ্যে ব্যবধান দূর করতে সক্ষম হয়েছে। এটি উদ্ভাবন, গবেষণা এবং উন্নয়ন প্রকল্প সমূহকে একটি শক্তিশালী ভিত্তি প্রদান করেছে। এর সব উদ্যোগ আমাদের যুবসমাজ, শিক্ষাবিদ, গবেষনা ও উন্নয়ন কর্মী, স্টার্ট আপ এবং সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে একটি যোগসূত্র তৈরী করেছে।”

এসময় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক উদ্ভাবনের লক্ষ্যে গৃহীত পদক্ষেপ সমূহের ব্যাপারেও কথা বলেন রাজনাথ সিং। প্রতিরক্ষা অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া (ডিএপি -২০২০) এর অধীনে আইডিইএক্সকে ক্রয়ের মাধ্যম হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা; আর্থিক বছর ২০২১-২০২২-এর জন্য আইডিইএক্স এর মাধ্যমে দেশীয় ক্রয়ের জন্য ১ হাজার কোটি টাকা নির্ধারণ এবং পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য ৪৯৮.৮ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন করে ৩০০ টিরও বেশি স্টার্টআপ এবং প্রতিরক্ষা এবং মহাকাশ খাতে উদ্ভাবনের মতো বিষয় গুলোর অবতারণা করেন তিনি।

ডিআইএসসি ৫.০ -উদ্যোগকে একটি আত্মনির্ভর প্রতিরক্ষা খাত তৈরীর ক্ষেত্রে সরকারের সঙ্কল্পের প্রতিফলন হিসেবে উল্লেখ করেন তিনি। পাশাপাশি এটি দেশের উদ্ভাবন, নকশা এবং বিকাশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এসময়, ডিআইএসসি কর্তৃক আয়োজিত পূর্বের চারটি সংস্করণ সম্পর্কে মন্তব্য করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, ৮০ টিরও বেশি স্টার্টআপ, এমএসএমই সহ বিভিন্ন উদ্ভাবক কর্তৃক ৪০ টিরও বেশি প্রযুক্তির দেখা পাওয়া গিয়েছে সেসব সংস্করণে।

শেষ ধাপে, প্রতিরক্ষা খাতে উদ্ভাবন, আধুনিক নকশা এবং বিকাশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবার আহবান জানান প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।