লঙ্কান প্রেসিডেন্ট গোটবায়া রাজাপাক্ষের অনুরোধে উক্ত পদক্ষেপ নিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনী।

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পাশে থাকতে শ্রীলঙ্কাকে ১০০ টন অতিরিক্ত অক্সিজেন সরবরাহ করলো ভারত। গত রবিবার, ২২ আগস্ট, উক্ত পরিমাণ তরল মেডিকেল অক্সিজেন নিয়ে কলম্বো পৌছায় ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজ আইএনএস শক্তি।

মূলত, বন্ধুপ্রতীম দ্বীপ-রাষ্ট্রটিতে করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্যে প্রয়োজনীয় মেডিকেল গ্রেড পরিমাণ অক্সিজেন মজুদ রাখতে লঙ্কান প্রেসিডেন্ট গোটবায়া রাজাপাক্ষের অনুরোধে উক্ত পদক্ষেপ নিয়েছে ভারত। এটি ভারতীয় নৌবাহিনীর ‘অপারেশন সমুদ্র সেতু –২’ কর্মসূচীর আওতায় কলম্বোয় পৌছে দেয়া হয়েছে।

কলম্বো পৌছানোর পর আইএনএস শক্তি এবং এর ক্রু মেম্বারদের স্বাগত জানান শ্রীলঙ্কার বন্দর মন্ত্রী রোহিতা আবেগুনাওয়ার্দেনা। মহামারী মোকাবেলায় ভারতীয় সহযোগীতার ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। পরবর্তীতে এ নিয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে শ্রীলঙ্কায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশন।

সম্প্রতি মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতীয় নৌবাহিনীর সঙ্গে মিলে ‘অপারেশন সমুদ্র সেতু – ২’ চালু করেছে ভারত সরকার। এর আওতায় বিদেশ থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার, ক্রায়োজেনিক ট্যাঙ্ক, ভেন্টিলেটর সহ অন্যান্য ত্রাণ সংগ্রহে নিজেদের সাতটি জাহাজ মোতায়েন করেছে ভারতীয় নৌবাহিনী।

প্রসঙ্গত, আইএনএস শক্তির কলম্বো যাত্রার দিনই ভারতের চেন্নাই বন্দর থেকে ৩৫ টন অক্সিজেন বোঝাই করে কলম্বোর উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছে শ্রীলঙ্কান নৌবাহিনীর জাহাজ শক্তি। এর মধ্য দিয়ে একই দিনে ভিন্ন দুটো বন্দর থেকে একই গন্তব্যে যাত্রা করলো জাহাজ দুটো।

এছাড়াও, আগামী সপ্তাহে ভারতের হলদিয়া এবং চেন্নাই বন্দর থেকে আরও ১৪০ টন তরল অক্সিজেন কলম্বোয় পৌছাবে বলে খবর রয়েছে। গত বছরও মহামারী শুরুর পরপরই এপ্রিল এবং মে মাসে লঙ্কায় ২৬ টন প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরঞ্জামাদি উপহার পাঠায় ভারত। পাশাপাশি চলতি বছরেও জানুয়ারী মাসে ভারত কর্তৃক উল্লেখযোগ্য পরিমাণ ভ্যাকসিন উপহার দেয়া হয় দ্বীপ রাষ্ট্রটিতে।

সাম্প্রতিককালে ভারতের প্রতিবেশী প্রথম নীতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসেবে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে মিত্রতা দিনকে দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির পাশাপাশি উন্নয়ন, শিক্ষা, সংস্কৃতি এবং প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে উভয় রাষ্ট্রের সহযোগিতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

শ্রীলঙ্কায় সার্বিকভাবে অবকাঠামোগত উন্নয়ন পরিচালনায় ভারত ইতোমধ্যে প্রায় সাড়ে তিন বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ দিয়েছে, যার মাঝে ৫৬০ মিলিয়ন ডলার অনুদান স্বরূপ। এছাড়াও, আঞ্চলিক ও বহুপাক্ষিক বিভিন্ন ইস্যুতে একে অন্যকে সমর্থন দিয়ে আসছে দেশ দুটো।

শ্রীলঙ্কা বর্তমানে বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, মিয়ানমার, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং থাইল্যান্ড এর সমন্বয়ে গঠিত বিমসটেকের সভাপতি। অন্যদিকে, ভারতও বর্তমানে নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি আগস্ট মাসের সভাপতির দায়িত্বও পালন করছে। বিগত জুন মাসেও ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে আলোচনায় মিলিত হোন লঙ্কান পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীনেশ গুনাওার্দেনার।