আন্তর্জাতিক সোলার অ্যালায়েন্স ফ্রেমওয়ার্ক হচ্ছে সৌর-সম্পদ সমৃদ্ধ দেশগুলোর একটি জোট যা ২০১৫ সালে ভারত এবং ফ্রান্সের যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয়।

বিশ্বের ৮০ তম রাষ্ট্র হিসেবে আন্তর্জাতিক সোলার অ্যালায়েন্স ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তিটিকে অনুমোদন এবং স্বাক্ষর করলো জার্মানী। ১০ সেপ্টেম্বর, শুক্রবার, জার্মানি পার্লামেন্টারি স্টেট সেক্রেটারি এবং ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের মধ্যকার এক বৈঠকে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।



পরবর্তীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী এক টুইটবার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জার্মানীর সংসদীয় দলের প্রতিনিধি নরবার্ট বার্থেল এবং ড. মারিয়া ফ্ল্যাশবার্থ এর সঙ্গে উক্ত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র দপ্তরের সচিব (ইআর) দাম্মু রবি এবং যুগ্ম-সচিব (ইডি) নূর শেখ।

টুইট লিঙ্ক: https://twitter.com/MEAIndia/status/1436216720725733376?s=20



উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক সোলার অ্যালায়েন্স ফ্রেমওয়ার্ক হচ্ছে সৌর-সম্পদ সমৃদ্ধ দেশগুলোর একটি জোট যা ২০১৫ সালে ভারত এবং ফ্রান্সের যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয়। মূলত যেসব রাষ্ট্রের উপর দিয়ে ক্রান্তীয় এবং মকর সংক্রান্তি রেখা কল্পনা করা হয়েছে, তাদেরকে এই জোটে অংশ নেয়ার আহবান জানানো হচ্ছে বহুদিন ধরেই।



মূলত একটি নিরাপদ, সুবিধাজনক, সাশ্রয়ী মূল্যের, ন্যায়সঙ্গত এবং টেকসই পদ্ধতিতে সৌরশক্তির ব্যবহার এবং গুণমান বৃদ্ধির অভিন্ন লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্রের মধ্যকার ফ্রেমওয়ার্ক হচ্ছে আন্তর্জাতিক সোলার অ্যালায়েন্স।



২০১৫ সালে প্যারিস জলবায়ু সম্মেলনে বিষয়টি উত্থাপন করেছিলেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পরবর্তীতে ২০১৮ সালে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক সৌর জোটের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্যদের নিয়ে সম্মেলন আয়োজন করে ভারত।



সে সময় ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি এবং ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও প্রায় ২০ টি রাষ্ট্রের রাষ্ট্র প্রধান এবং সরকার প্রধান, ৬ টি রাষ্ট্রের উপ-রাষ্ট্রপতি কিংবা উপ-প্রধানমন্ত্রী সম্মেলনটিতে যোগদান করেন।



এর আগে গত ০৯ সেপ্টেম্বর, বৃহস্পতিবার, দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সার্বিক অগ্রগতি পর্যালোচনা করতে নয়াদিল্লীর ইন্দিরা পরিবরণ ভবনে বৈঠক করেছিলেন ভারত এবং জার্মানীর কূটনীতিকগণ। এতে জলবায়ু পরিবর্তন, পানির ঘাটতি, সমুদ্র দূষণ, বায়ু দূষণ এবং চক্রাকার অর্থনীতির মতো বিস্তৃত পরিবেশগত সমস্যা নিয়ে বিস্তৃত আলোচনা করেন তাঁরা।