উপসাগরীয় অঞ্চলের রাষ্ট্রসমূহ ভারতীয় প্রবাসীদের জন্য অন্যতম প্রধান গন্তব্যস্থল।

করোনার প্রথম এবং দ্বিতীয় ঢেউ চলাকালীন দেশে ফিরে আসা অভিবাসী শ্রমিকদের পুনরায় স্বীয় কর্মক্ষেত্রে পাঠানোর বিষয়ে ইতোমধ্যে বিদেশী রাষ্ট্রসমূহের যোগাযোগ শুরু করেছে ভারত। ১০ সেপ্টেম্বর, শুক্রবার, চতুর্থ অভিবাসী সুরক্ষা সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে ভাষণ দিতে গিয়ে এ কথা জানান ভারতীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ভি মুরালিধরণ।



মুরালিধরণ জানান, “আমরা ইতোমধ্যে আমাদের দূতাবাস গুলোর মাধ্যমে বিদেশী রাষ্ট্রসমূহের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছি। সরকার প্রবাসী শ্রমিকদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে যথেষ্ট সক্রিয় ভূমিকা নিয়েছে। দ্বিপক্ষীয় পরামর্শ ব্যবস্থার মাধ্যমে অভিবাসন সংক্রান্ত সকল সমস্যা শীঘ্রই দূর করা হবে।”



এসময়, বর্তমানে দেশে অবস্থান করা অভিবাসী শ্রমিকদের দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে একটি ডাটাবেজ তৈরী করা হচ্ছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। এই উদ্যোগের নাম SWADES (Skilled Workers Arrival Database for Employment Support) দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।



প্রতিমন্ত্রী বলেন, “উপসাগরীয় অঞ্চলের রাষ্ট্রসমূহ ভারতীয় প্রবাসীদের জন্য অন্যতম প্রধান গন্তব্যস্থল। আমরা এসব দেশগুলোর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ করছি। করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়েও তাঁরা আমাদের পাশেই রয়েছে। মহামারীতে এ অঞ্চলে বসবাস করা ভারতীয় সম্প্রদায়ের যে সমস্যা গুলোর সম্মুখীন হতে হয়েছে, তা দূরীকরণে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি।”



এসব বক্তব্যের পাশাপাশি সম্প্রতি হওয়া কিছু জনবল বিনিময় চুক্তির ব্যাপারেও সবাইকে জানান মুরালিধরণ। তিনি বলেন, “চলতি বছরের শুরুর দিকে জাপানের সঙ্গে দক্ষ শ্রমিক বিনিময় চুক্তি হয়েছে আমাদের। জাপানী শিল্প ও সেবা খাতে কাজ করার সুযোগ দেয়া হবে ভারতীয় নাগরিকদের।”



এছাড়াও, যুক্তরাজ্য, কুয়েত এবং পর্তুগালের সঙ্গে হওয়া সাম্প্রতিক জনবল ও দক্ষ শ্রমিক বিনিময় চুক্তির বিষয়েও কথা বলেন তিনি। এসবের পাশাপাশি, পাসপোর্ট সেবা অধিকতর সহজতর করণ, ভারতীয় মিশন সমূহে সেবা বৃদ্ধি, অভিবাসন সংক্রান্ত সকল জটিলতা নিরসনে পদক্ষেপ গ্রহণ, রেমিট্যান্স সহ বিভিন্ন বিষয়ে মোদী সরকারের নেয়া বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন প্রতিমন্ত্রী মুরালিধরণ।