আফগানিস্তানে তালেবান সরকার গঠন পরবর্তী সময়ে সৌদী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

তিনদিনের সফরে ভারতে এসেছেন সৌদী পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ। ১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, রাজধানী নয়াদিল্লীতে এসে পৌঁছান তিনি। তাঁকে অভ্যর্থনা ও স্বাগত জানিয়েছেন ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর।



পরবর্তীতে সৌদী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আগমন নিয়ে একটি টুইট করেছেন জয়শঙ্কর নিজেই। সেখানে তিনি লিখেছেন, “সৌদী পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে তাঁর প্রথম ভারত সফরে অভ্যর্থনা জানাতে পেরে আমি আনন্দিত।”



আফগানিস্তানে তালেবান সরকার গঠন পরবর্তী সময়ে সৌদী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ধারণা করা হচ্ছে, জয়শঙ্করের সঙ্গে ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদের আলোচনার মূল বিষয়বস্তুও হবে আফগানিস্তান। ইতোপূর্বে তালেবানের সঙ্গে সৌদী জোটের মিত্রতা দৃশ্যমান থাকলেও এবার সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ভারতের জোর প্রচেষ্টায় অনেকটাই নমনীয় তাঁরা।



মধ্য এশীয় অঞ্চল জুড়ে সৌদী অন্যতম প্রভাবশালী একটি রাষ্ট্র এবং আফগানিস্তান ইস্যুতে সৌদীর ভূমিকা প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষ দুই ভাবেই ব্যাপক প্রভাব ফেলবে। ইতোমধ্যে কাতার ও ইরান তালেবানের পাশে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছে। তাই সৌদীর ভূমিকা এখানে ব্যাপকভাবে পর্যবেক্ষণ করছে কূটনৈতিক মহল।



গত শুক্রবার, এসসিও নেতৃত্বের শীর্ষ সম্মেলনে এ নিয়ে কথা বলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী মোদী। তিনি বলেন, “ক্ষমতার পরিবর্তনের পাশাপাশি গ্রহণযোগ্যতার বিষয়টিও মাথায় রাখতে হবে। বিশ্ব সম্প্রদায়ের উচিৎ হবে ‘সম্মিলিতভাবে’ এবং ‘চিন্তাভাবনা করে’ সিদ্ধান্ত নেয়া।”



প্রসঙ্গত, সম্প্রতি সম্পর্ক উন্নয়নের দিকে মনযোগ দিয়েছে ভারত ও সৌদী আরব। দু দেশের মধ্যকার প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা সম্পর্ক দিনকে দিন জোরদার হচ্ছে। এছাড়া করোনাকালে পরস্পরকে ব্যাপকভাবে সাহায্য করে দেশ দুটো।



গত ২০২০ সালের ডিসেম্বরে সৌদী সফরে যান ভারতীয় সেনা প্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারাভানে।