বিশ্বব্যাপী জটিল ও ক্রমবর্ধমান নানা সমস্যা সমাধানে নিরাপত্তা পরিষদে সংস্কার প্রয়োজন।

নিরাপত্তা পরিষদকে বর্তমানের চেয়ে অধিক প্রতিনিধিত্বশীল, কার্যকর এবং গ্রহণযোগ্য করতে এর দ্রুত এবং জরুরী সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন ব্রাজিল, জার্মানী, জাপান এবং ভারতের সমন্বয়ে গঠিত জি-৪ জোটের পররাষ্ট্রমন্ত্রীগণ।



গত ২২ সেপ্টেম্বর, বুধবার, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬ তম অধিবেশনের এক ফাঁকে বৈঠকে মিলিত হোন জি-৪ জোটের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। সেখানে বৈশ্বিক ও আঞ্চলিক নানা ইস্যুতে মতবিনিময় করেন তাঁরা।



বৈঠকে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। অন্যদের মধ্যে ছিলেন, ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কার্লোস আলবার্তো ফ্রাঙ্কো ফ্রাঙ্কা, জার্মানীর পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস এবং জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোতেগি তোশিমিতসু।



পরবর্তীতে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জি-৪ নেতাদের বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সেখানে, বিশ্বব্যাপী জটিল ও ক্রমবর্ধমান নানা সমস্যা সমাধানে নিরাপত্তা পরিষদে সংস্কার প্রয়োজন বলে উল্লেখ করে তাঁরা।



বৈঠকে নিরাপত্তা পরিষদের সংস্কার ইস্যু ছাড়াও বৈশ্বিক অন্যান্য ইস্যুতে একে অন্যকে সহযোগিতা করার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে জি-৪ পররাষ্ট্রমন্ত্রীগণ। তাছাড়া, জাতিসংঘের চলতি সাধারণ পরিষদ অধিবেশনেও সংস্কার ইস্যুতে সরব হওয়ার ব্যাপারে একমত হয়েছেন তাঁরা। একই সঙ্গে, শীঘ্রই আবারও একত্রে বৈঠকের বিষয়ে সম্মত হয়েছেন জি-৪ নেতৃত্ব।



প্রসঙ্গত, নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়ী সদস্যপদ রয়েছে কেবলমাত্র পাঁচটি রাষ্ট্রের। সেগুলো যথাক্রমে, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, চীন এবং রাশিয়া। তারা প্রত্যেকেই ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগের অধিকারী।



বিশ্বের নীতি নির্ধারণী এই ফোরামে ভারত বর্তমানে দু বছর মেয়াদে অস্থায়ী সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। বিগত আগস্ট মাসে নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করে ভারত।



জনসংখ্যা ও ভৌগলিক অবস্থান বিবেচনায় ভারত বরাবরই নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যপদ প্রাপ্তির বিষয়ে দাবি জানিয়ে আসছে।