করোনা সঙ্কট উত্তরণে উভয় দেশ ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন ভারতীয় কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী।

ভারত এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার সাপ্লাই চেইনের স্থিতিশীলতা বজায় রাখা এবং ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে বাণিজ্য প্রসারে একত্রে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন ভারতীয় কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী পীযূষ গয়াল।

২৭ সেপ্টেম্বর, সোমবার, অস্ট্রেলিয়া ইন্ডিয়া বিজনেস চ্যাম্পিয়ন্স -এর উদ্বোধনী সভায় বক্তৃতাকালে গয়াল বলেন, “ভারত যেহেতু সাপ্লাই চেইনের এক বৈশ্বিক কেন্দ্র হিসেবে নিজেকে রূপান্তরিত করার চেষ্টা করছে, তাই অস্ট্রেলিয়ার গ্লোবাল ভ্যালু চেইন (জিভিসি) এর সঙ্গে অংশীদারিত্ব করতে আমরা যারপরনাই আগ্রহী।”

ভারতীয় মন্ত্রী আরও বলেন, “আমাদের যৌথ লক্ষ্য হবে দু দেশে ছড়িয়ে থাকা বিশাল উদ্যোক্তা প্রতিভার কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য একটি কোর্স তৈরি করা, একটি সমৃদ্ধ বেসরকারি খাতের পাশাপাশি দক্ষ শ্রমের একটি দেশীয় বাজার গড়ে তোলা।”

আন্তর্জাতিক সরবরাহ শৃঙ্খলকে কার্যকর এবং শক্তিশালী করার লক্ষ্যের কথা পুনর্ব্যক্ত করে গয়াল বলেন, “আমাদের অনুকূল ভূ-রাজনৈতিক পরিবেশকে সম্পূর্ণভাবে কাজে লাগিয়ে আন্তর্জাতিক সরবরাহ শৃঙ্খলকে শক্তিশালী করতে হবে। রপ্তানী সম্ভাবনা বৃদ্ধির দিকে মনোনিবেশ করে অর্থনীতির পুনর্গঠনের গতি ধরে রাখতে হবে।”

এসময়, করোনা সঙ্কট উত্তরণে উভয় দেশ ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন ভারতীয় কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী। ফলস্বরূপ, করোনা মহামারী চলাকালীন সময় থেকে উভয় রাষ্ট্রের মধ্যকার সম্পর্ক পূর্বের যেকোনো সময়ের তুলনায় অনেক বেশি দৃঢ় এবং মজবুত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্য, পর্যটন ও বিনিয়োগ মন্ত্রী ড্যান তেহান। তিনি বলেন, “অস্ট্রেলিয়ার অর্থনৈতিক কৌশলের ক্ষেত্রে, বিশেষ করে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ খাতে এক গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রাসঙ্গিক অংশীদার হয়ে উঠেছে ভারত। ভারত এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার বহুমুখী সম্পর্ক, ঐতিহ্যগত মেলবন্ধন এই সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করতে ভূমিকা রাখছে।”

তেহান আরও বলেন, “অস্ট্রেলিয়া-ইন্ডিয়া বিজনেস চ্যাম্পিয়নস গ্রুপের মূল লক্ষ্য হওয়া উচিৎ উভয় দেশের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যকে আরও গভীর করতে কাজ করা এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পথ সুগম করা।”