ন্যামের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে জোটকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কাজ চালিয়ে যাবে ভারত

বিশ্বব্যাপী জোট নিরপেক্ষ আন্দোলন – ন্যাম এর ৬০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে উচ্চ পর্যায়ের এক স্মারক সভায় যোগ দিতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হিসেবে সার্বিয়া যাচ্ছেন ভারতীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মীনাক্ষী লেখি। আগামী ১০ থেকে ১৩ অক্টোবর অবধি সময়কালে দেশটিতে সফর করবেন তিনি।



উল্লেখ্য, এবারের ন্যাম সম্মেলনটি যৌথভাবে আয়োজন করছেন সার্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্দার ভুসিচ এবং আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট আলিয়েভের। প্রায় ৬০ বছর পূর্বে ১৯৬১ সালে পুরাতন যুগোস্লাভিয়ার ও বর্তমান সার্বিয়ার রাজধানী বেলগ্রেডে জন্ম হয় জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের।



ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ন্যামের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে জোটকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কাজ চালিয়ে যাবে ভারত।



জানা গিয়েছে, সার্বিয়ায় অবস্থানকালে দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী ব্রানিস্লাভ নেদিমোভিচ, কৃষি, বন ও পানি ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন নেবোজিয়া স্টেফানোভিচ, উপ -প্রধানমন্ত্রী এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী মজা গোজকোভিচ এবং বাণিজ্য, পর্যটন ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী তাতজানা মাতিশ এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন মীনাক্ষী লেখি।



সার্বিয়া অবস্থানকালে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আবক্ষ মূর্তি উন্মোচন করবেন লেখি। এরপর জাতিসংঘের ৭৬ তম অধিবেশনের প্রতিনিধি পরিষদের মহিলা কূটনীতিকগণ এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের বৈঠকেও উপস্থিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে তাঁর।



উল্লেখ্য, উপনিবেশিক ব্যবস্থার ভাঙনের পর এবং স্নায়ুযুদ্ধ চলাকালে আফ্রিকা, লাতিন আমেরিকা, এশিয়া সহ বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের মানুষের সংগ্রামকে তুলে ধরতেই ন্যাম এর প্রতিষ্ঠা হয়েছিলো। প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিশ্বব্যাপী নিরপেক্ষ দেশগুলোর আন্দোলন, বিশ্ব শান্তি এবং সুরক্ষা নিশ্চায়নে মৌলিক ভূমিকা পালন করে আসছে ন্যাম।



প্রসঙ্গত, সম্প্রতি সম্পর্ক উন্নয়নের দিকে মনযোগ দিয়েছে ভারত ও সার্বিয়া। দু দেশের মধ্যকার প্রতিরক্ষা ও বাণিজ্য সম্পর্ক দিনকে দিন জোরদার হচ্ছে। এছাড়া করোনাকালে পরস্পরকে ব্যাপকভাবে সাহায্য করে দেশ দুটো।



গত ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে সার্বিয়ার প্রধানমন্ত্রী আলেকজান্দার ভুসিচকের আমন্ত্রণে দেশটি ভ্রমণে যান উপরাষ্ট্রপতি এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু। সেই সফরকালে সার্বিয়ান বিজ্ঞানী ও উদ্ভাবক নিকোলা টেসলা এবং ভারতের আধ্যাত্মিক গুরু স্বামী বিবেকানন্দের নামে স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করে দেশ দুটো।