দশদিনে ভারত ও বাংলাদেশ মিলিয়ে প্রায় ৩৭০ কিলোমিটারেরও বেশি পথ অতিক্রম করবে অভিযানটি।

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ সাইক্লিং অভিযান শুরু হয়েছে। গত সোমবার (১৫ নভেম্বর) সকালে ফ্লাগ অফের মাধ্যমে যশোর সেনানিবাসের ওসমানী স্টেডিয়াম থেকে এ যাত্রা শুরু হয়। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল নূরুল আনোয়ার এই অভিযানের উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও ভারতীয় সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এসময় বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে ধারণ করে যশোর ক্যান্টনমেন্ট কলেজ ও দাউদ পাবলিক স্কুলের শিক্ষার্থীরা মনোজ্ঞ ডিসপ্লে প্রদর্শন করে। এছাড়া সেনাবাহিনী সদস্যরা সংগীত পরিবেশন করেন।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর তত্ত্ববধানে ৫৫ পদাতিক ডিভিশন চতুর্থ যৌথ সাইক্লিং অভিযান পরিচালনা করছে। অভিযানে বাংলাদেশের ২০ ও ভারতের ১৯ জন সাইক্লিস্ট অংশগ্রহণ করছেন। বাংলাদেশ দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন মেজর মাহমুদ আফজাল ও ভারতের নেতৃত্বে রয়েছেন কর্নেল মোহিত সিং।

ভারতীয় হাইকমিশন জানায়, অভিযানটি বাংলাদেশের ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর ও চুয়াডাঙ্গা জেলার ১৯৭ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করবে। এসময় তারা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন।

এরপর পুরো দল শুক্রবার দর্শনা সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করবেন। পরবর্তীতে ভারতের কৃষ্ণনগর, রানাঘাট ও কল্যাণী অতিক্রম করে কলকাতায় মধ্য দিয়ে আগামী ২৪ নভেম্বর আরও ১৮১ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে তাদের চূড়ান্ত গন্তব্যে পৌঁছাবে।

কলকাতায় ভারতীয় সেনাবাহিনী আয়োজিত সমাপনী অনুষ্ঠানে অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে। সমাপ্তি ঘোষণা করবেন ইস্টার্ন কমান্ডের জিওসি-ইন-সি। ২০১৭ সালে প্রথমবারের মতো এই অভিযান শুরু হয়। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক