উভয় পক্ষই সীমান্তে শান্তি নিশ্চিত করতে এবং যেকোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়ানোর অঙ্গীকার করেছে।

সীমান্তে চলমান অচলাবস্থা দূর করতে পরামর্শ ও সমন্বয়ের জন্য ওয়ার্কিং মেকানিজমের ২৩তম বৈঠক করেছে ভারত ও চীন। ১৮ নভেম্বর, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ভার্চুয়াল মাধ্যমে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরবর্তীতে তথ্যটি নিশ্চিত করেছে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বৈঠকে সীমান্তে চলমান উত্তেজনা দ্রুততম সময়ে প্রশমনের বিষয়ে বিস্তর আলোচনা করেন উভয় রাষ্ট্রের প্রতিনিধিগণ। এই লক্ষ্যে গত সেপ্টেম্বরে দুশান্বেতে অনুষ্ঠিত দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্ত সমূহের প্রসঙ্গও টানেন তাঁরা। উল্লেখ্য, ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর এবং চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এর মধ্যে অনুষ্ঠিত সেই বৈঠকে সীমান্ত সমস্যার সমাপ্তি ঘটাতে কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠকের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিলো।

ইতোপূর্বে বেশ কয়েকটি কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠকেও মিলিত হয়েছিলো ভারত ও চীনের সামরিক কর্তাগণ। কিন্তু গত ১০ অক্টোবর প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলএসি) বরাবর দুই দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকটিতে সম্মত সমাধানে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয় উভয় পক্ষই। তারই প্রেক্ষিতে আজকের ওয়ার্কিং মেকানিজম সংলাপটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলএসি) বরাবর সৃষ্ট সকল সমস্যার দ্রুত সমাধান করতে সম্মত হয়েছে উভয় পক্ষ। দ্বিপাক্ষিক সকল চুক্তি এবং প্রোটোকল মেনে চলতে বাধ্য হয়েছে দু দেশেরই কর্মকর্তাগণ। উভয় পক্ষই সীমান্তে শান্তি নিশ্চিত করতে এবং যেকোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়ানোর অঙ্গীকার করেছে।

বৈঠকের ভারতীয় প্রতিনিধিদলের নেতৃত্বে ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব নবীন শ্রীবাস্তব (পূর্ব এশিয়া) । তাঁর সঙ্গে ছিলেন ভারতীয় সেনাবাহিনী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ইন্দো-তিব্বত সীমান্ত পুলিশ (আইটিবিপি) এবং ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্তাগণ। অন্যদিকে চীনা প্রতিনিধিদলের নেতৃত্বে ছিলেন চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সীমানা ও মহাসাগরীয় বিভাগের মহাপরিচালক। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক