ভারতীয় বংশোদ্ভূত লঙ্কান তামিলদের উন্নয়নে কাজ করে যাবার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন ভারত সরকার।

তামিলদের ঐতিহ্যবাহী পোঙ্গল উৎসব উপলক্ষ্যে শ্রীলঙ্কার কৃষি অধ্যুষিত জেলা গুলোতে বসবাসরত তামিল সম্প্রদায়কে আরও ১০০০ বাড়ি হস্তান্তর করেছে ভারত। গত ১৫ জানুয়ারী, শনিবার, লঙ্কায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনের কে বিবৃতিতে বলা হয়, প্রাথমিক ধাপে শ্রীলঙ্কার তামিল এস্টেট কর্মীদের জন্য সাতটি জেলা জুড়ে বিস্তৃত কৃষি অধ্যুষিত এলাকায় চার হাজারটি বাড়ি নির্মাণ করা হচ্ছে। এর মাঝে প্রথম তিন হাজার বাড়ির চাবি ন্যায্য পাওনাদারদের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। আরও ৭৫০ টি বাড়ি দ্রুত হস্তান্তর করা হবে।

শ্রীলঙ্কার কোটাগালায় এই হস্তান্তর অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন, শ্রীলঙ্কায় ভারতীয় হাইকমিশনার গোপাল বাগলে, শ্রীলঙ্কার যুব, ক্রীড়া ও উন্নয়ন সমন্বয় মন্ত্রী নমাল রাজাপাকসে এবং এস্টেট হাউজিং ও কমিউনিটি ইনফ্রাস্ট্রাকচার প্রতিমন্ত্রী জীবন থন্ডামান। এছাড়াও, লঙ্কান সাংসদ এসবি ডিসানায়েকে এবং এম রামেশ্বরনের মতো গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গও অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে বক্তৃতায় হাইকমিশনার বাগলে তামিল ভাষায় পোঙ্গলের শুভেচ্ছা জানান। পাশাপাশি ভারত সরকারের তরফে ভারতীয় বংশোদ্ভূত লঙ্কান তামিলদের উন্নয়নে কাজ করে যাবার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তিনি। পোঙ্গল উৎসবকে ভারত ও শ্রীলঙ্কা দুই দেশের মেলবন্ধনের সংযোগ রেখা হিসেবে আখ্যায়িত করেন অভিজ্ঞ এই কূটনীতিক।

উল্লেখ্য, ভারতীয় আবাসন প্রকল্প শ্রীলঙ্কায় একটি ফ্ল্যাগশিপ উন্নয়ন সহায়তা প্রোগ্রাম যা ধাপে ধাপে দ্বীপ দেশের বিভিন্ন পর্যায়ে পরিচালিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে শ্রীলঙ্কার উত্তর ও পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোতে ছেচল্লিশ হাজার বাড়ি তৈরী কিংবা মেরামত করা হচ্ছে।

তাছাড়া, শ্রীলঙ্কা জুড়ে আরও নতুন ১০ হাজার বাড়ি নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে ভারত সরকার লঙ্কাতে প্রায় ৬০ হাজার বাড়ি নির্মাণের মাইলফলক অর্জন করবে।

উল্লেখ্য, প্রায় সাড়ে তিন বিলিয়ন মার্কিন ডলারের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্ক রয়েছে ভারত ও শ্রীলঙ্কার। বহুপাক্ষিক ফোরামগুলোতেও এঁকে অন্যকে সমর্থন দেয় দেশ দুটো।

প্রসঙ্গত, পোঙ্গল হলো একটি লোকজ উৎসব, যা তামিল জাতিগোষ্ঠী উদ্‌যাপন করে থাকে। “পোঙ্গল” শব্দের বাংলা অর্থ ‘বিপ্লব’, যা তামিল জাতির পরম্পরাগত ও ঐতিহ্যবাহী উৎসব। পোঙ্গাল উৎসব প্রতি বছর ১৪ থেকে ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত পালন করা হয়। তামিলনাড়ুতে নতুন ফসল কাটার পর এই উৎসব পালন করা হয়, যা অনেকটা বাংলা অঞ্চলে পালিত নবান্ন উৎসবের মতো। তামিলদের এই উৎসব অন্তত ১০০০ বছরের পুরনো। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক