১০ এপ্রিল হতে জাপানে ১ম এবং ২য় ডোজের জন্য কোভ্যাকসিনকেও একটি স্বীকৃত ভ্যাকসিন হিসেবে মান্যতা দেয়া হবে।

মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আরও একবার সেরার সম্মান পেলো ভারতীয় ভ্যাকসিন। ০৭ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার, ভারত বায়োটেক দ্বারা তৈরিকৃত কোভ্যাকসিনকে স্বীকৃতি দিলো জাপান। তথ্যটি নিশ্চিত করেছে দেশটিতে নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাস। মূলত, ভ্রমণ সহজতর করতেই এমন উদ্যোগ নিলো কিশিদা সরকার।

এক টুইটবার্তায় দেশটিতে নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাস জানায়, “জাপান সরকার ভারত থেকে জাপানে ভ্রমণকে আরও সহজ করার জন্য ১০ এপ্রিল ২০২২ থেকে মহামারীর বিরুদ্ধে কার্যকরী ভ্যাকসিন হিসেবে ভারত বায়োটেক কর্তৃক দেশীয়ভাবে তৈরী কোভ্যাকসিনকে স্বীকৃতি দিয়েছে।”

জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, “জাপানের বাইরে নেয়া টীকাগুলোর ক্ষেত্রে যদি জাপানি বা ইংরেজিতে নাম, জন্ম তারিখ, পণ্যের নাম, ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক, টিকা দেয়ার তারিখ এবং ডোজ সংখ্যার উল্লেখ থাকে, তাহলে সেটি জাপানে মান্যতা দেয়া হয়।”

উল্লেখ্য, জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেতে দীর্ঘদিন অপেক্ষা করতে হয়েছে কোভ্যাক্সিনকে। নিজেদের তৈরি এই টিকার অনুমোদনের জন্য গত এপ্রিলে আবেদন করেছিলো ভারত বায়োটক। গত জুলাইয়ে পাঠানো হয় টিকার সুরক্ষা, কার্যকারিতা, উৎপাদনস্থল পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো।

সেসময় ভারত বায়োটেক জানিয়েছিল, ক্লিনিকাল ট্রায়ালের যাবতীয় তথ্য সহ ভ্যাকসিনের এফিকেসি পুরোটাই পেশ করা হয়েছে। যে সমস্ত করোনা রোগীরা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের দেহে এই ভ্যাকসিন ৭৭.৮ শতাংশ কার্যকরী বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে জানায় ভারত বায়োটেক। এছাড়াও, কোভ্যাকসিন করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে ৬৫.২ শতাংশ প্রোটেকশন দিতে সক্ষম বলেও জানায় তাঁরা।

ভারতীয় পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটের তথ্য মোতাবেক, ভ্যাকসিন মৈত্রী উদ্যোগের অধীনে করোনার শুরু থেকে এখনও অবধি ভারত পৃথিবীর প্রায় ৯৫ টি দেশে ভ্যাকসিন সরবরাহ করেছে। সংখ্যার হিসেবে প্রায় ৬৬৪ লক্ষ ডোজ টিকা সরবরাহ করেছে ভারত, যার মধ্যে ১০৭ লক্ষ ভ্যাকসিন ডোজ অনুদান হিসাবে, ৩৫৮ লক্ষ বাণিজ্যিক সরবরাহ হিসাবে এবং ১৯৯ লক্ষ ডোজ কোভ্যাক্স সুবিধার অধীনে সরবরাহ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, এখনও অবধি ইউরোপীয় রাষ্ট্রগুলো সহ বিশ্বের প্রায় ৯০ এর অধিক রাষ্ট্র ভারতীয় ভ্যাকসিন গুলোর যথার্থতার স্বীকৃতি দিয়েছে। তাছাড়া, করোনা ঠেকাতে ৭৭.৮ শতাংশ সফল কোভ্যাক্সিন, এমন স্বীকৃতিও ইতোমধ্যে দিয়ে দিয়েছে চিকিৎসা বিজ্ঞানের আন্তর্জাতিক জার্নাল ‘দ্য ল্যানসেট’-এ প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক